১৯৯৯, ডিসেম্বর……এক ঝলক দেখা

সিরিয়াল ১

১৯৯৯, ডিসেম্বর……এক ঝলক দেখা
আমি ক্লাস টেনে পড়ি। আমাদের বাসায় এক ছেলে এসেছে আব্বুর কাছে কোন একটা কাজে। ড্রইংরুমে বসেছে। কে না কে, তাই আমি আর দেখা করিনি।

আমি পাশের ঘরে টেলিফোনে কথা বলি। দুই ঘরের মাঝখানে একটা দরজা। আম্মু নাস্তা নিয়ে ঢুকল ড্রইংরুমের দরজা দিয়ে। আমি তাই ওইদিকে তাকালাম। আমার একটা বিশেষ ধরনের জ্যাকেট পছন্দ ছিল ওই সময়। দেখি, ওই ব্যক্তি ঠিক আমার পছন্দমত জ্যাকেট পড়ে আছে। আগে কোন দিন তাকে দেখিনি। পুরোটা মাথা দেখা যাচ্ছে না। একটা সাইড ই দেখলাম। দেখেই আমি……মুগ্ধ…।। এত সাধারণ, কোনই বাহুল্য নেই! না জানি পুরোটা চেহারা কেমন! তিনি কিন্তু আমাকে দেখেন নি।

তিনি চলে যাবার সময় আমি তিন তলার বারান্দা থেকে চুপ করে তাকিয়ে ছিলাম নিচে। কিন্তু ঐ গাধা টাইপ লোকটা একবারও বারান্দার দিকে তাকালো না। মনের আনন্দে তার নকিয়া মোবাইলে ( ওই আমলে ঐটাই বহুত দামী) গেম খেলতে খেলতে চলে গেল।

আমি মনে মনে হাসলাম। এতো বড় মানুষ এভাবে শিশুর মত গেম খেলছে! মুগ্ধতা…ভালো লাগায় পরিনত হল। কাহিনী এখানেই শেষ। এরপর আর কোন দিনই দেখা হয়নি….এটা আমি ভেবেছিলাম। কিন্তু দেখা হয়েছিল হয়েছিল হয়েছিল!

২০০০, সেপ্টেম্বর……এক ঝলক দেখা-২

নিউমারকেটে গিয়েছি আব্বুর সাথে তুলি আর ব্রাশ কিনতে। ছোট ভাইয়ের কয়েকটা ছবি একে দিতে হবে। চলন্তিকা লাইব্রেরীর সামনে এসেছি। দেখি আব্বু নাই। হায় হায় আমি কি হারিয়ে গেলাম নাকি। মোবাইলের যুগ তখনও হয়নি আমাদের। কি উপায়! দেখি আব্বু কথা বলছে একটা ছেলের সাথে। আমি তার মাথার চুল দেখতে পাচ্ছি। হেটে আব্বুর পাশে দাঁড়িয়ে রইলাম। লাইব্রেরীর কলম গুলো অনেক সুন্দর। আব্বু বলে,” মিতুমনি দেখো কার সাথে দেখা! ও…তুমিতো ওকে চিনো না। আমাদের বাসায় মাঝে মাঝে আসে, কিন্তু তুমিতো কলেজে থাকো।তাই দেখা হয় না। তোমার ছবি দেখে, গল্প শুনে শুনেই তোমাকে চিনে বেশি”।
আমি চুপ করে মাথা নিচু করে দাঁড়িয়ে ছিলাম ( আমি কিন্তু ওই আমলে অনেক লাজুক ছিলাম)। তাই সালাম দিলাম আর সোজা আব্বুর পিঠের পিছনে চলে গেলাম। চেহারা দেখলাম না। হঠাত আব্বু বলে , ” মিতুমনি তুমিতো মনে হয় একদিন ওকে দেখেছিলে। তুমি থাকতে একদিন এসেছিল। ও…না না…তুমি ফোনে কথা বলছিলে। ও পরে চলে গিয়েছিল।”
আমি মনে মনে ভাবছি…এইটা কি ওই জ্যাকেট ওয়ালা নাকি! ভাবছি চেহারাটা দেখবো। কিন্তু আমি গাধী গাধী গাধী……তাকানোরই সাহস পেলাম না। ধুর! আমি যে কি ছিলাম! গাধা টাইপ লোকটা আমার সাথে কথাও বলে না যে তাকাবো। কিভাবে বুঝব যে এইটাই জ্যাকেট ওয়ালা কি না! যতক্ষনে আমি একটু তাকালাম, ততক্ষনে লোকটা একটা কলম কিনে চলে গেল। আব্বুকেও মনে হয় কোন কলম কিনে দিয়েছিল। আমার মনে পড়ছে না। আমি বললাম, ” আব্বু , এই লোক কি যেদিন আমি থাকতে এসেছিল, জ্যাকেট পরে এসেছিল? কালো রঙের?”। আব্বুর জবাব হ্যা। হায় হায়……আমি আবারো মিস করলাম চেহারাটা দেখা!
***** পরে জেনেছিলাম ছেলেটি আব্বুর পিঠের পিছনে আমার লুকিয়ে যাওয়া দেখে অবাক হয়েছিলেন বেশ। এই যুগে কারো এমন লজ্জা থাকে তিনি জানতেন না।তিনি শুনেছিলেন, ক্যাডেটদের নাকি লজ্জা কম! কিন্তু আমি ভাবছি, ঐদিন আমার কি হয়েছিল!

৭৫২ বার দেখা হয়েছে

১০ টি মন্তব্য : “১৯৯৯, ডিসেম্বর……এক ঝলক দেখা”

  1. আহসান আকাশ (৯৬-০২)

    ব্লগে স্বাগতম ব্যাচমেট... নিয়মিত লিখতে থাক :thumbup:


    আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
    আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

    জবাব দিন

মওন্তব্য করুন : তাশরীফ (২০০৭-১৩)

জবাব দিতে না চাইলে এখানে ক্লিক করুন।

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।