“রোকেয়া কিবোর্ড লেআউট”: আমার তৈরী করা বাংলা কিবোর্ড লেআউট ও প্রোগ্রাম

অন্যরকম একটা অনুভূতি নিয়ে এই ব্লগটি লিখছি৷ যেখানে শেষ হয়েছিল তার পরে অনেকটা অংশ জুড়ে কিছু নেই, এরপর এই পোস্ট৷ শেষ থেকে শুরু করছি মনে হচ্ছে৷

সামহোয়ারইনে ২টি পোস্টে আলোচনা শুরু করেছিলাম আমার বানানো ফোনেটিক-ফিক্সড লেআউটের উপর৷
( দিনে বাংলা ভাষা নিয়ে আমার একটি কাজ: নতুন একটি ফোনেটিক কিবোর্ডবাংলা ভাষার কিবোর্ড: কেমন চাই – কি আছে…… তুলনামূলক আলোচনা )৷ এখন ওটার ডিটেইলস লিখছি৷ আপনাদের সবাইকে অনুরোধ করবো প্লিজ সেটা দেখবেন ও ফিডব্যাক দিবেন

কিবোর্ডের ছবি:

অক্ষরের বিন্যাস:
যেকোন লেআউটেই আমাদের বাংলা টাইপের জন্যে ৬২টি সিম্বল মাথায় রাখতে হয়৷ (৩৯টি ব্যঞ্জনবর্ণ+১১টি স্বরবর্ণ+১০টি কার-রূপ+হসন্ত+য-ফলা = ৬২)৷ আমি আগেই বলেছি কিবোর্ড মুখস্থ করাতে বাধ্য করাকে আমি সমর্থন করিনা৷ তাই দেখা যাক আমাদের পরিচিত স্টাইলেই কিভাবে মনে রাখা যায়৷

খুব সহজ, আমরা কিভাবে বর্ণমালা মনে রাখি ??? স্বরবর্ণ ও প্রথম ২৫টি ব্যঞ্জনবর্ণ জোড়ায় জোড়ায় এবং বাকিগুলি মনে রাখতে পারিনা সিরিয়ালি৷ ইংরেজীতে কোন বর্ণ লিখতে প্রতিটার করেসপন্ডিং একটা ইংরেজী বর্ণ আছে যেটা আমরা ব্যবহার করি৷ আমার লেআউটে এরকম মিল সাপোর্ট করা হবে৷ এবং তা জোড়ায় জোড়ায়, অর্থাৎ যে বাটনে “ক” আছে সেই বাটনেই “খ” আসবে আবার যে বাটনে “গ” আছে সেই বাটনেই “ঘ” থাকবে৷ একইসাথে স্বরবর্ণগুলি কার-রূপ ও পূর্ণ রূপে একই বাটনে থাকবে। তাহলে প্রাইমারী লিস্টটা হল:

ক/খ=K , গ/ঘ=G , চ/ছ=C , জ/ঝ=J , প/ফ=P , ব/ভ=B , য=Z , এ/ঐ=E , অ/আ=A , ই/ঈ=i , উ/ঊ=U , ঋ=W , ম=M , ন/ণ=N , ভ=V , র=R , ও/ঔ=O , স/ষ=S , ল=L

এবার তাহলে বাকিগুলি৷ “ড়/ঢ়” ২টিকে আমরা একসাথে মনে রাখি কিন্তু “R”-এ “র” চলে যাওয়ায় ৩টিকে একত্রে জায়গা দিতে পারবো না৷ তাই “Q=ড়/ঢ়” হল৷ ঙ/ঞ এই দু’টিকে দেয়া হল “X” এর জায়গায়৷

বাকি থাকলো ত,থ,দ,ধ এবং ট,ঠ,ড,ঢ৷ এখানে হাসিন ভাইয়ার ডেভেলপ করা স্টাইলটা ফলো করে “T” এ ট এবং ত কে, “D” তে ড এবং দ কে দেয়া হল৷ একই সাথে “Y”- এ য় এবং য-ফলাকে জায়গা দেয়া হল৷

বাদ থাকলো শ,ং,ঁ,ঃ, ধ,ঢ,থ৷ থ-কে ক্যাপিটাল-R , ধ-কে ক্যাপিটাল-W এবং শ-কে ক্যাপিটাল L এ দেয়া হল
সবশেষে ঃ=M ঁ=B ং=V (এই কয়েকটাই শুধু মুখস্থ করতে হবে, সমস্যা হবে না আশা করি )

এবার ফোনেটিক ও যুক্তাক্ষর সাপোর্ট:
ক/খ এর মত জোড়া কিভাবে লিখা যায় ?? ক=k হলে খ=kh ,তাইনা ?? এখানেও এমন সব ফর্মেশন সাপোর্ট করবে। তাহলে তো আবার সমস্যা, “হ” তাহলে কই যাবে ??? মানে তো “হ”। সিম্পল, “হ” লিখতে হবে “ক্যাপিটাল-H” দিয়ে।
আর যুক্তবর্ণ লিখতে হবে অক্ষরটি বানান করে এবং বর্ণগুলিকে যুক্ত করতে চাপতে হবে হসন্ত। হসন্ত আছে F(ছোট হাতের এফ, বড় হাতেরটায় “ফ” আছে)-এর জায়গায়। মানে স্কুল= স(s) হসন্ত(f) ক(k) উ(u) ল(l)

************

আরো কিছু ব্যাপার আছে সেটা না বলি। টেস্ট করে দেখুন ও ফিডব্যাক দিন প্লিজ

প্রজেক্ট হোমপেজ: http://code.google.com/p/bangla-keyboard-layout/
অনলাইন ডেমো: http://phonetic.sourceforge.net/

নামকরণ:
আর হ্যা, এটার নাম রেখেছি “রোকেয়া” লে-আউট কারণ আমি রংপুরের ছেলে, আমার বাসার খুব কাছেই বেগম রোকেয়ার জন্ম। বেগম রোকেয়া না আসলে এদেশের মেয়েরা ১০০ বছর পিছায় থাকতো। সমাজ তো খালি ছেলেদের দিয়ে না, তাই পুরো সমাজ ১০০ বছর পিছিয়ে থাকতো। আমার মা হয়তোবা শিক্ষিত হতেন না, আমিও তাই হতাম না। একই কথা সবার জন্যেই, তাইনা??? আমি নামকরণের দ্বারা উনাকে ছোট্ট একটা সম্মান দেয়ার চেষ্টা করেছি

আর ওয়েবসাইট তৈরী করেছে “আমড়া কাঠের ঢেকী“। আমি ওর কাছে ভীষণ ভীষণ ভীষণভাবে কৃতজ্ঞ। পুরো প্রজেক্টে আমার ক্রেডিট যদি হয় ৪০% তাহলে ওর ৬০% কারণ ও অনলাইন ডেমো সাইটটা বানিয়ে দিয়েছে, কিম্যাপটি তৈরী করে দিয়েছে, কোড টেস্টিং করে দিয়েছে। আমি তো শুধু বসে বসে কোড করেছি, এগুলি করা কঠিন ছিল আমার জন্যে। থ্যাংকস থ্যাংকস থ্যাংকস ম্যান

এইতো এ পর্যন্তই……..ভাল থাকবেন সবাই
(অরিজিনাল পোস্ট: http://www.somewhereinblog.net/blog/seoul/29115161 সামহোয়ারইন থেকে সরাসরি কপি করে দেয়া ব্লগ৷ উদ্দেশ্য: আপনাদের সবার রিভিউ কালেকশন করা)

২,৭৬৫ বার দেখা হয়েছে

৩৭ টি মন্তব্য : ““রোকেয়া কিবোর্ড লেআউট”: আমার তৈরী করা বাংলা কিবোর্ড লেআউট ও প্রোগ্রাম”

  1. সাইফ শহীদ (১৯৬১-১৯৬৫)

    স্নেহের মাশফিক,
    খুব ভালো লাগলো তোমার কাজ দেখে । ব্যবহার করে তোমাকে পরে বিস্তারিত ভাবে আমার মতামত জানাবো।

    আমার ২৫ বছরের আগের লেখা পড়ে হয়ত মজা পাবে তাই নিচে লিংক-টা দিলাম :

    http://sites.google.com/site/shahidlipi/Home

    জবাব দিন
    • আহমেদ মাশফিক রায়হান সিউল (১৯৯৮-২০০৪)

      সবকয়টা একটানে পড়লাম ভাইয়া। এত আগে এতকিছু চিন্তা করেছিলেন এটা আসলেই আমাদের সবার জন্যে গর্বের ব্যাপার :clap: :clap: আমার কাজটাকে এটার ধারাবাহিকতা বলতে পারেন...... 🙂

      আপনার স্পেস দিয়ে লিখার স্টাইলটা গুগল তাদের ট্রান্সলিটারেশনে অ্যাপ্লাই করেছে( এই ব্লগে গুগল ট্রান্সলিটারেশন আছে খেয়াল করলাম এখন)...... আপনার একটা কথা খুবই ভাল লাগলো: "আমি ভাষাবিদ নই, তবে যন্ত্রের ব্যবহারের জন্যে ভাষাকে বিকৃত করতে হবে এর পক্ষে আমি নই"..... আমি আগাগোড়া এই নীতিটি মেনে চলেছি এবং চলবো... বর্তমান ফোনেটিক লেআউটে কিন্তু উল্টাপাল্টা অনেক বর্ণ তৈরী হয়,যেমন: আি, ক্প্প্প্প্প । আমি এগুলি যাতে তৈরী না হয় সেটা নিশ্চিত করছি...... এছাড়া ইংরেজীটার সাথে মিল রাখা, "ক" যেই বাটনে "খ"-কেও সেই বাটনে দেয়া এগুলিও করেছি ( আমি কিবোর্ডটি তৈরীর আগে সবাই কিভাবে অক্ষরগুলি মনে রাখে সেটার ডাটা নিয়েছিলাম, আপনারটার ডেভেলপ করার সময় এবং আজকে কোনই পার্থক্য নেই মনে রাখার স্টাইলে 🙂 )

      ভাবতেই অবাক লাগছে কোন রকম ইউনিকোড ও ফন্ট সাপোর্ট ছাড়াই এত বিশাল কাজ কি করে করেছিলেন

      হ্যাটস অফ টু ইউ ভাইয়া :hatsoff: :hatsoff: :hatsoff: :hatsoff:

      জবাব দিন
  2. ফয়েজ (৮৭-৯৩)

    জটিল একটা কাজের পিছনে লেগে থেকে শেষ করতে পেরেছো জন্য তোমাকে অভিনন্দন।

    এই অধ্যবসায় তোমাকে আরও উপরে নিয়ে যাক এই দোয়া করি।


    পালটে দেবার স্বপ্ন আমার এখনও গেল না

    জবাব দিন
    • আহমেদ মাশফিক রায়হান সিউল (১৯৯৮-২০০৪)

      ভাইয়া কাজটা শেষ হয়নি, কেবল তো শুরু....... আমাদের ভাষার জন্যে এখন যা প্রয়োজন: ওসিআর ( যেমন অ্যাক্রোব্যাট রিডার ইংরেজী অক্ষর রিড করে), স্পেল চেকার ( এটা অ্যাড-অনে থাকলেও ওপেন সোর্সে নাই), অপারেটিং সিস্টেম ইনডিপেন্ডেন্ট সফটওয়ার এগুলির জন্যে

      আশার কথা হল, এগুলি অলরেডি হয়ে আছে..... শুধু খালি একজায়গায় আনার অপেক্ষা 🙂

      আপনাকে এটার কথা জানানোর ইচ্ছা ছিল...... আপনি দেখলেন জন্যে ভাল লাগছে ভাইয়া.... ভাল থাকবেন 🙂

      জবাব দিন
    • আহমেদ মাশফিক রায়হান সিউল (১৯৯৮-২০০৪)

      লেগে থাকা আরকি ভাইয়া..... নিজের সন্তুষ্টি লেভেলে না যাওয়া পর্যন্ত তো আছিই 🙂 মানে এটুকুন যেন দাবী করতে পারি সবদিকেই ভাল এমন একটা কিছুর অস্তিত্ব আছে এমন কোড/প্রোগ্রামের অস্তিত্ব আছে, আমি নিজে সেটার ডেভেলপমেন্টের কাজ করেছি.....অবশ্যই আমি একা তো পারবো না, তাই প্রোগ্রামটিকে সবার জন্যেই উন্মুক্ত করে রেখেছি গুগল কোডে হোস্ট করে

      হ্যাট খুলে থ্যাংকস দিয়েন না ভাইয়া...... আমাদের হ্যাট তাদের জন্যেই খোলা থাকুক যারা ভাষার জন্যে প্রাণ দিয়েছেন 🙂

      জবাব দিন
  3. মাসরুফ (১৯৯৭-২০০৩)

    ভাই আমি টেকি না কিন্তু তোমার কাজটা খুব ভাল লাগল।বাংলা ভাষা ছড়িয়ে পড়ুক প্রত্যেকটা দেশে-তোমার কাজ যেন এটাকে বাস্তবায়িত করতে সহায়তা করে এই কামনা করি।তোমার নামকরণটাও খুব ভাল লেগেছে।আমার মত "লেম্যান" এর অভিনন্দন তোমার কোন কাজে আসবে কিনা জানিনা,তারপরেও টুপিখোলা অভিনন্দন জানাচ্ছি।

    জবাব দিন
    • আহমেদ মাশফিক রায়হান সিউল (১৯৯৮-২০০৪)

      ভাইয়া "লেম্যান" মানে কি ?? মানে সেন্সটা বুঝি নাই 😐

      আপনার অভিনন্দন কেন আমার কাজে আসবে না ???? যেকোন রকম উৎসাহকেই আমি সামনে আগানোর প্রেরণা মনে করি 🙂 আপনার কাজটা ভাল লাগল এবং এটা আপনি জানালেন....ফলে এতে আমি বুঝলাম আমি রাইট ট্রাকে আছি...... সুতরাং আমি আরো সামনে এগুতে পারি....... অবশ্যই অবশ্যই যেকোন ধরনের অনুপ্রেরণা পাওয়া খুশীর ব্যাপার

      জবাব দিন
      • মাসরুফ (১৯৯৭-২০০৩)

        লেম্যান মানে হইল এক্কেবারেই গাঁও গেরামের সহজ সরল মানুষ যে কিচ্ছু বুঝেনা-আর টেকিতে আমার দৌড় সিসিবি ওয়েবসাইট ওপেন করা পর্যন্তই(লিঙ্ক দেওয়া শিখছি মাসখানেক হইল)।টেকনিকাল ভাষায় তোমার কাজের সমালোচনা করার যোগ্যতা আমার নাই রে ভাই-আমার ভাল লাগছে প্রজেক্ট হিসেবে বাংলা কীবোর্ড তৈরি করা এবং তার নামকরণ।দোয়া করি অনেকদূর যাও 🙂

        জবাব দিন
        • আহমেদ মাশফিক রায়হান সিউল (১৯৯৮-২০০৪)

          কি যে বলেন, কিবোর্ড এবং কলমের মাঝে কোনই পার্থক্য নাই....... ২টাই নিজের ভাষাকে লেখার জন্যে 🙂

          কিবোর্ড তো ভাইয়া সবার জন্যেই 🙂 টেকনিক্যাল রিভিউ কোনই ব্যাপার না.....আপনার লেভেল থেকেও এটা খুবই সহজ, যেমন: আি জিনিসটা দেখেন.... এটা ফোনেটিক কিবোর্ডে টাইপ করা হয়েছে.... অবশ্যই এটা ঠিক না কারণ আ ও ই কখনোই একসাথে আসবে না, তাইনা ??? এরকম সঠিক জিনিস আসছে কি আসছে না কিবোর্ড থেকে এটাই হল রিভিউ 🙂

          জবাব দিন
  4. আহমদ (৮৮-৯৪)

    সিউল :hatsoff: :salute:
    -- তোমার কলেজ মেইট।

    যাই হোক, ব্লগে তোমার কেউ এখনো ওরিয়েন্টেশন করাইল না কেন? ১ম ব্লগে ১০টা :frontroll: দিতে হয়, এইটা জান তো, নাকি?

    তাড়াতাড়ি শুরু করে দাও তো দেখি। 😡


    চ্যারিটি বিগিনস এট হোম

    জবাব দিন
  5. তারেক (৯৪ - ০০)

    আমি ফুলটাইম অভ্র ব্যবহারকারী, অভ্র-র সাথে বিচ্ছেদ সহ্য হচ্ছিলো না বলে এমনকি লিনাক্সও দূরে ঠেলে দিয়েছি!
    বাংলালাইভ ডট কমে আর গুরুচন্ডা৯-র সাইটে একটা কী-বোর্ড পাওয়া যায়, ওটাও ফোনেটিক, ২০০৪ শুরুতে অনেকদিন ওটা ব্যবহার করেছি। তারপরে বাংলাওয়ার্ড নামে একটা সফটওয়্যার পাওয়া যেত। ওদের নিজেদের ফন্ট ছিলো, লে-আউটটাও বেশ ভাল ছিল। কী-স্ট্রোক অনেক কম দরকার হতো। কিন্তু পরে অভ্র পেয়ে যাওয়ায় আর কোনদিকে তাকাইনি, এটাই ব্যবহার করছি।
    *
    সিউল,
    যতটুকু বুঝলাম, তোমার মূল ফোকাস হচ্ছে লে-আউট। তাহলে কিন্তু তুমি সত্যিই তোমার লে-আউটটা অভ্রর মেহেদীর কাছে পাঠিয়ে দিতে পারো। সেরকম ব্যবস্থা আছে বলেই জানি।
    ***

    বাংলা কম্পিউটিং নিয়ে কাজ করছেন যারা এখন, তাদের কাছে আমাদের এখন আসলে তিনটে দাবী।
    ১। একটা চমৎকার ফন্ট। যাতে প্রতিটা গ্লিফ আসে ভালভাবে, ইংরেজি/বাংলার আকৃতি সমান বা সুন্দর থাকে, যফলা রফলা জায়গামতন থাকে। ইচ্ছে মতো ছোট বড় করলেও লেপ্টে যায় না।
    ২। ইউনিকোডটাকে প্রকাশনা বান্ধব করে তোলা, এটা খুবই জরুরি।
    ৩। আর একটা বাংলা ওসিআর। স্ক্যান করা লেখা যেন কম্পিউটার চিনে নিতে পারে।

    -----------------------------------


    www.tareqnurulhasan.com
    www.boidweep.com

    জবাব দিন
  6. ইফতেখার (৯৯-০৫)

    মাশফিক ভাই,
    আপনের এইসব কাজের কথা তো জানতামই না!!! Boss 😮
    কিচ্ছু বলার নাই, :just: :hatsoff: :hatsoff: :hatsoff: ✌
    চালিয়ে যান (ইংরেজি তে Keep Going লিখতে চাইছিলাম, কিন্তু এই পোস্টে সেইটা মানাইত না মনে হয় 😛 )

    জবাব দিন

মওন্তব্য করুন : আহমেদ মাশফিক রায়হান সিউল (১৯৯৮-২০০৪)

জবাব দিতে না চাইলে এখানে ক্লিক করুন।

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।