ট্রেন রোল অন….

ট্রেনে চড়েছি। এই নিয়ে চতুর্থবার। অবরোধে প্রথম। তিস্তা এক্সপ্রেস, “ঝ” বগি। প্রথম সিটে, জানালার পাশে। ব্যাপক প্যানিকের মধ্যে আছি। বসেই আমি আর শিপু দুইজন মিলে ট্রেনের বেগ,বাতাসের বেগ,গতিশীল পিকেটারের গতিশীল ঢিলের বেগ,স্থির পিকেটারের গতিশীল ঢিলের বেগ,ঢিলের ট্য্রাজেক্টরি ইত্যাদি বলবিদ্যা বিষয়ক হিসাব কষা শুরু করলাম। সাথেসাথে আমরা পিকেটার হলে কোথায় ঢিল ছুড়তাম? বলবিদ্যা বিষয়ক হিসাবগুলা করতাম কিনা?ঢিল ছুড়ার জন্য সুবিধাজনক জায়গা কোথায় হত?কতটুকু দুরত্ব থেকে ঢিল ছুড়লে লক্ষ্যভেদ করার সম্ভাবনা বেশি হতে পারে?কত ডিগ্রি কোণে? ইত্যাদি মনস্তাত্ত্বিক বিষয়গুলোও বাকি থাকল না। বিবেচনা শেষে আমারা এই সিদ্ধান্তে উপনীত হলাম যে আমরা বেশ সুবিধাজনক সিটেই আছি। একজন পুলিশ বগিতে হাজির হওয়ায় নিরাপত্তা চাদরের উষ্ণতাও পেলাম। আমি শিপুকে বললামঃ-
-মাস্টার! দেখ পুলিশ।
-হ।তরে নিরাপত্তা দিতে আইছে।

কিছুক্ষণ অফ থেকে আবার জিজ্ঞাসা করলামঃ-

-তাইলে ট্রেনের গতির অনুকূলে কেউ ঢিল মারলে আমাদের গায়ে লাগবে না?
-সম্ভাবনা নাই।
-গতির প্রতিকূলে মারলে?
-না।তাও নাই।
-আর কপাল খারাপ হইলে?
-ঢিল যেমনেই মারুক তর গায়েই লাগব।
সামনে বসা চাচা আর আটাকায়ে রাখতে পারলেন না,হেসেই দিলেন।

ট্রেন বেশ জোরেই যাচ্ছে। হেডফোনে lynyrd skynyrd এর Tuesday ‘s gone (Metallica cover ভার্সন) গানটা বেশ জোরেই বাজছে,বারবার বাজছেঃ-

” Train roll on, on down the line
Won’t you please take me far, far away
Now, i feel the wind blow outside my
door
I’m leaving my woman at home
My baby’s gone
Tuesday’s gone with the wind
My baby’s gone with the wind
And i don’t know where I’m going
I just want to be left alone
When this train ends, i’ll try again……!”

যদিও ময়মনসিংহ home না,আর woman ও কেউ নাই সেখানে, তবুও ছুয়ে যাচ্ছে গানটা। ট্রেন আসলেই rolling on! ট্রেনের roll, ঘটাং ঘটাং বোল আর গানের তালে আপনাআপনি মাথা দুলছে। সেই দুলুনিতে শিপু কখন ঘুমায়ে পড়েছে!তার মাথা আমার কাঁধে।

কিছুক্ষণ আগে গফরগাঁও ফেলে এলাম। আরো অনেকখানি অনিশ্চিত পথ।জানালার বাইরে রাতের অবরুদ্ধ বাংলাদেশ। এর মাঝেই ইস্পাতের সাথে ইস্পাতের ঘর্ষণে অনিশ্চয়তা কেটে কেটে আমাদের ট্রেন rolls on!
অবরুদ্ধ বাংলার বুকে অন্ধকার ফুঁড়ে ঘটাং ঘটাং!
on, and on…..!

১,১৮৪ বার দেখা হয়েছে

১০ টি মন্তব্য : “ট্রেন রোল অন….”

  1. মোকাব্বির (৯৮-০৪)

    খুব পছন্দের গান। ব্যাপারটা তোমার হয় কিনা জানি না, আমার মাঝেমাঝে পরিস্থিতির সাথে চমৎকার ভাবে মিলে যাওয়া গান প্লে লিস্টে বেজে উঠে। 🙂


    \\\তুমি আসবে বলে, হে স্বাধীনতা
    অবুঝ শিশু হামাগুড়ি দিল পিতামাতার লাশের ওপর।\\\

    জবাব দিন

মওন্তব্য করুন : মামুনুর রশীদ খান(২০০১—২০০৭)

জবাব দিতে না চাইলে এখানে ক্লিক করুন।

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।