সেইসব গল্পঃ দুই

সে আমায় বলেছিল, “ভালো থেকো ফুল, মিষ্টি বকুল, ভালো থেকো!”
মুহূর্তেই আমার শরীর, মন বকুলের গন্ধে ভ’রে ওঠেছিল।
আ-হা, সেই প্রিয় নারী, প্রিয় কবিতা তোমার কন্ঠে যেন প্রিয় সুর হয়ে বেজে ওঠে …

তোমার ছবির দিকে অপলক তাকিয়ে থাকি, এই অবেলায়
চোখ সরেনা, মনও ফেরেনা, পথ চলা থেমে যেতে চায়।
উনুনের পুড়ে যাওয়া কাঠ যেমন গনগনে লাল হয়ে থাকে, সেথায়
আগুনের শিখাটা নেই জানি, বুঝি তবু তাপটা থেকে যায়!

আজ বৃষ্টির সাথে যদি তোমার দেখা হয়, তবে
দুঃখের সব তাপ দূর হয়ে যাবে,
শরীরের বন্ধ দরজা, কিংবা মনের খোলা বাতায়ন
জেনে নিও প্রতিদিনই আমাদের এক নতুন জীবন!

নিয়তি কেড়ে নিয়ে নিলে সব স্বপ্ন-সাধ,
ছবিগুলোতে বিষণ্ণতার মাখামাখি অবাধ।
চুপটি ক’রে তুমি একবার হাসলে মনে হলো
আবার বুঝি সেই ‘বকুল গন্ধে বন্যা এলো’।

সেপ্টেম্বর ১৯, ২০১৫
টরন্টো, কানাডা।

 

৩ টি মন্তব্য : “সেইসব গল্পঃ দুই”

মওন্তব্য করুন : নূপুর কান্তি দাশ (৮৪-৯০)

জবাব দিতে না চাইলে এখানে ক্লিক করুন।

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।