বৃষ্টিবিলাস

আকাশজুড়ে মেঘের সভা, সূর্য মেঘে ঢাকা
চিন্তা ছিল, ভাবনা ছিল, মনটা বেঁধে রাখা।
রসায়নে মন বসে না, বইয়ের পাতায় চোখ,
জানলা খোলা, ভেজা হাওয়া জানায় অভিযোগ।
এলোমেলো মাতাল হাওয়ায় উড়ুউড়ু চুল,
সমীকরণ লিখতে গিয়ে সাজাই শুধু ভুল।
চোখ চলে যায় মাঠ পেরিয়ে মেঘবালিকার সাথে,
বই খাতা সব রইল পড়ে, বৃষ্টি আমায় ডাকে।
বড় বড় ফোঁটায় নামে কালো মেঘের ঢল
ভিজছি আমি, ভিজছে শহর, ছায়াবীথির দল।
দমকা হাওয়ায় আঁচল ওড়ে, ওড়ে আমার মন
কদম, বেলি, বকুল, হেনা মন করে উন্মন।
ক্লান্তি ছিল, ভ্রান্তি ছিল—জলে গেল ধুয়ে
মন্দমধুর বৃষ্টিমালা হূদয় গেল ছুঁয়ে।
হিমেল হাওয়া বইছে ভীষণ, শীতল করে প্রাণ
বৃষ্টিধারা সৃষ্টি করে মিষ্টিমধুর তান,
চুমুক চুমুক কফির কাপে, মধুর এ আবেশ
ভাবি জীবন মন্দ তো নয়। এই তো আছি বেশ।

১,৪০৭ বার দেখা হয়েছে

১৫ টি মন্তব্য : “বৃষ্টিবিলাস”

মওন্তব্য করুন : রাব্বী (২০০৫-২০১১)

জবাব দিতে না চাইলে এখানে ক্লিক করুন।

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।