পরাটা এবং পুডিং … উল্টা চিত্র!

প্রথমেই বলে নেই এটা আমার প্রথম লেখা, আর এর আগে কথাও এক-দুই লাইন ও লিখে দেখিনি,  লেখাটি পড়ার সময় এ কথা মনে রাখার জন্য অনুরোধ করছি।
পরাটা ও পুডিং এর অনেক প্রশংসা শুনলাম, আমার নিজের ও খুব ভাল লাগত, এ ছাড়াও আরও অনেক meal ছিল যা ভাল লাগত, কিন্তু এরকম ও কিছু meal ছিল যা মুখেও দেওয়া যেত না। আমার ব্যক্তিগত ভাবে সবচেয়ে অপছন্দ ছিল ব্রেড ( অবশ্যই ব্রেকফাস্ট এর টা, ইংলিশ ডিনারেরটা না। আমার দূরভাগ্য আর্মিতে জয়েন করার কারনে আরও অনেক দিন এর অত্যাচার সহ্য করতে হয়েছে।)
মিল্ক ব্রেক গুলো ছিল সবচেয়ে ভয়াবহ, দুধসেমাই এমন ছিল যে প্লেট উল্টা করে ধরলেও যা প্লেট থেকে পোড়তো না, আর শুকনো সেমাই তো এক সাথে দলা পাকিয়ে কি যে হয়ে থাকতো…
শাকুরবড়া নামে যা দিতো তা খাবার চেয়ে অন্যের গায়ে ছুড়ে মারার জন্য বেশি কার্যকরি ছিল। আরও ছিল চটপটি, স্যান্ডউইচ, শাহী টুকরা, কাস্টার্ড এর কলেজ সংস্করন।
ব্রেকফাস্ট এর তেহারি ছিল অন্যতম ফেভারিট কিন্তু হটাত( খন্ড ত কিভাবে লেখে ? )করে ডালডা দিয়ে রান্না করা শুরু করেছিল, ফলাফল সেই  দুধ সেমাই এর মত, প্লেট এর সাথেই লেগে থাকত।
এরকম আরও অনেক কিছুই ছিল, কিন্তু কলেজ এর খারাপ দিক গুলো নিয়ে এত বলা ঠিক হচ্ছে কিনা কে যানে, তাও আবার প্রথম পোস্ট এ।

১,৩৯৩ বার দেখা হয়েছে

১৫ টি মন্তব্য : “পরাটা এবং পুডিং … উল্টা চিত্র!”

  1. তৌফিক (৯৬-০২)

    ১...

    অভ্র হইলে ৎ লিখে t`` দিয়া।

    ২...

    একটা ছবি আপলোড করলে খোমাখান দেখবার পারতাম। তোরে মনে হয় চিনি, চেহারা দেখলে কইতে পারুম। ৫১ র হইলে আরো বেশি চিনুম হয়তো।

    ৩...

    লেখা ভালো হইছে। চালায়া যা। :clap:

    জবাব দিন
  2. আহ্সান (৮৮-৯৪)

    ওই মিয়া, ক্যাডেট নাম আজাদ হইলে এইখানে নাম আহসান নিছো কেন? তাইতো কই...আহসান নামটা ফ্রী পাইনা কেন...।

    আর শোন, খারাপ বা ভালো যেটা সম্পর্কেই লেখ না কেন ব্যাপার না...। লেখা চলবে...। বোঝা গেলো?

    চেহারা মোবারক খানা দেখাইয়া আমাদের কে প্রীত করিও...।

    ভালো থাইকো।

    জবাব দিন
  3. অর্চি (৯৯-০৫)

    শাকুরবড়ার নাম আমাদের কলেজে ছিল শাকোরপাড়া। ওটার মত অখাদ্য আর নাই! ব্রেকফাস্ট এর তেহারি ছিল বেস্ট! কেন জানি আমারো ব্রেড আর বাটার খুবই প্রিয় ছিল। :shy: আর সব সুইট ডিশ- পেস্ট্রি, কাস্টার্ড, পুডিং...আহ জিভে জল! 😛

    জবাব দিন
  4. আহসান আকাশ (৯৬-০২)

    ব্রেড আর বাটার একটা সময় আমার ও ভাল লাগতো, যখন ICCFM এর প্রাকটিস করতাম, সকালের প্রাকটিস এর পর এত্ত খুদা লাগত... কুক হাউসের ভিতর থেকে খুজে খুজে ব্রেড বের করে নিয়ে খেতাম। 😛


    আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
    আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

    জবাব দিন
  5. রকিব (০১-০৭)

    পরাটা...ক্লাস ৭ এ থাকতে মাঝে মাঝে মনে হতো যেন ইলাসটিক খাচ্চি। ৩ টা পরাটা শেষ করা মানে তখন বিশ্বজয়। আর ক্লাস ১২ এ উঠে মাত্র ৩ তা পরাটা...ক্ষুধাই যেত না। আহ......


    আমি তবু বলি:
    এখনো যে কটা দিন বেঁচে আছি সূর্যে সূর্যে চলি ..

    জবাব দিন

মওন্তব্য করুন : আহসান (১৯৮৮- ১৯৯৪)

জবাব দিতে না চাইলে এখানে ক্লিক করুন।

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।