সুপার কাপঃ আবাহনী ও শেখ রাসেল এর জয়

আগের দুদিন দুটো অঘটন ঘটলেও আজ ৩য় দিনে প্রত্যাশিতভাবে দুই বড় দলজয় পেয়েছে, আবাহনী প্রথমে পিছিয়ে পড়েও ২-১ গোলে হারিয়েছে চট্টগ্রাম মোহামেডানকে, অপর দিকে শেখ রাসেল হারিয়েছে রহমতগঞ্জকে। টানা ২য় জয়ের মাধ্যমে সেমিফাইনাল অনেকটাই নিশ্চিত করে ফেলেছে আবাহনী অপর দিকে টানা দুই ম্যাচ হেরে রহমতগঞ্জের সেমিফাইনাল স্বপ্ন প্রায় শেষ।

দিনের প্রথম ম্যাচে তুলনামুলকভাবে ভাল খেলেও রহমতগঞ্জ পরাজয় বরন করে, ম্যাচের ৫২ মিনিটে ডানদিক থেকে সামির ওমারির ক্রসে হাওয়ায় শরীর ভাসিয়ে সার্বিয়ান খেলোয়ার মিলুনোভিচ অসাধারন এক গোল করে শেখ রাসেলকে জয় পাইয়ে দেন। ম্যাচ শেষে রহমতগঞ্জের কোচ মীর ফারুক দুষছেন ভাগ্যকে, ”বল পজেশন ও সুযোগের দিক থেকে আমরা অনেক এগিয়ে ছিলাম। কিন্তু ভাগ্য সঙ্গে না থাকায় ম্যাচটা জিততে পারলাম না।”

২য় ম্যাচে আবারো এমেকার একক নৈপুন্যে আগের ম্যাচে অঘটন ঘটানো চট্টগ্রাম মোহামেডানকে হারিয়েছে আবাহনী। তবে ম্যাচে বিশেষ করে প্রথমার্ধে আবাহনীর পারফর্মেন্স ছিল হতাশাজনক, কোন আক্রমনই তারা গড়ে তুলতে পারছিল না, উলটো ৩৯ মিনিটে কায়সারের পাঠানো মাইনাসে রাফায়েল অসাধারণ সাইডভলিতে দুর্দান্ত গোল করে এগিয়ে নেন চট্টগ্রাম মোহামেডানকে। গোল খাবার পর আবাহনী ম্যাচে ফিরে আসার জন্য মরিয়া হয়ে ওঠে এবং চার মিনিটের মাথায় গোল পরিশোধ করে গত ম্যাচের জোড়া গোলদাতা এমেকা। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে চট্টগ্রাম মোহামেডান আবার চাপিয়ে খেলা শুরু করে, এ পর্যায়ে তারা কিছুটা রাফ ফুটবল খেলা শুরু করলে ম্যাচে উত্তেজনা দেখা দেয় যারই ফল স্বরুপ আবাহনীর ইব্রাহিম ও জয় হলুদ কার্ড দেখেন। এরপর আবাহনী খেলা অনেকটা গুছিয়ে ফেলে এবং বেশ কয়েকটি আক্রমন চালায়, শেষ পর্যন্ত অন্তিম মুহুর্তে ৮৯ মিনিটে জয়সূচক গোল করেন সেই এমেকা। ম্যাচ শেষে আবাহনী কোচ অমলেশ সেন ম্যাচের প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে বলেছেন, “আমরা দ্বিতীয়ার্ধে ভাল খেলেছি। প্রথমার্ধে ওরা ভাল লড়াইকরেছে। কিন্তু ওরা রাফ ট্যাকল করে খেলায় সৌন্দর্যহানি হয়েছে। এ ব্যাপারে রেফারিকে আরো সতর্ক হওয়া উচিত।” অন্য দিকে দুই ম্যাচে ৪ গোল করা এমেকা বলেন, “আমার ক্যারিয়ারে বোধহয় এত ভাল কখনো খেলিনি আমি। সুপার কাপের শিরোপা উপহার দেবো আবাহনীকে।”

এ পর্যন্ত ৬ ম্যাচে মোট গোল হয়েছে ১০ টি, হতাশাজনকভাবে এর মধ্য থেকে মাত্র একটি গোল এসেছে দেশি খেলোয়ারের পা থেকে।

সুপার কাপ…মূল পোস্ট

৫ টি মন্তব্য : “সুপার কাপঃ আবাহনী ও শেখ রাসেল এর জয়”

    • আহসান আকাশ (৯৬-০২)

      না এহসান ভাই, ওইটা চট্টগ্রাম মোহামেডানের নাসিরের গোল শেখ রাসেলের সাথে।

      আজকের অবস্থা অবশ্য বেশ ভাল, দুই ম্যাচে গোল হয়েছে ৭টি, তারমধ্যে ৫ট করেছে দেশিরা।


      আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
      আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

      জবাব দিন

মওন্তব্য করুন : এহসান (৮৯-৯৫)

জবাব দিতে না চাইলে এখানে ক্লিক করুন।

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।